সর্বশেষ সংবাদ
সালমান শাহের মৃত্যু রহস্য উদঘাটনে সময় পেল পিবিআই  » «   এসডিসি কার্য্যনির্বাহী কমিটির সভা অনুষ্ঠিত  » «   মৌলভীবাজারের ৫ জনের যুদ্ধাপরাধের রায় যে কোনো দিন  » «   এরা এখনো বিশ্বাস করে না পৃথিবী গোল!  » «   সাগরে লঘুচাপ, হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টিপাতের পূর্বাভাস  » «   লাউয়াছড়ায় অবমুক্ত করা হয়েছে বিরল প্রজাতির লেজের ‘মোল’  » «   লন্ড‌নে এসিড হামলায় দু‌টি চোখ হারা‌লেন বাংলা‌দেশী তরুন  » «   জাফলংয়ে মাটি চাপায় কিশোরী নিহত, আহত ৪  » «   ক্লিনিক আর ডায়গনাস্টিক সেন্টারে সড়কজুড়ে যানজট  » «   কমরেড আ ফ ম মাহবুবুল হক আর নেই  » «   গোলাপগঞ্জে তেলবাহী লেগুনায় আগুন  » «   পিলখানা হত্যাকাণ্ড : হাইকোর্টের রায় ২৬ নভেম্বর  » «   লোদীর বাসায় মেয়র আরিফ: বিরোধের অবসান!  » «   নগরীতেে কোনদিন কোথায় স্মার্ট কার্ড বিতরণ  » «   সৌদির বিরুদ্ধে লেবাননের যুদ্ধ ঘোষণা!  » «  

মণিপুরীসহ নৃগোষ্ঠীর ১৪ দফা দাবিতে স্মারকলিপি



foxস্টাফরিপোর্টার: সংসদে সংরক্ষিত আসন পৃথক মন্ত্রণালয়সহ ১৪ দফা দাবি তুলেছে মণিপুরীসহ নৃতাত্তিক জনগোষ্ঠী। এসব দাবি আনুষ্ঠানিক ঘোষণার পাশাপাশি স্মারকলিপি আকারে প্রধানমন্ত্রী বরাবর প্রেরণ করা হয়েছে। সিলেটের জেলা প্রশাসক রাহাত আনোয়ারের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি প্রদান ছাড়াও গত ১৪ ডিসেম্বর বৃহস্পতিবার রাতে অনুষ্ঠিত সম্মেলনে এই দাবিসমুহ ঘোষণা করা হয়।
কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দের উপস্থিতিতে মণিপুরী সমাজকল্যাণ সিলেট জেলা শাখার প্রথম সম্মেলনে এই দাবি ঘোষণা করেন সমিতির জেলা সাধারণ সম্পাদক সংগ্রাম সিংহ। সমিতির জেলা সভাপতি নির্মল কুমার সিংহের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সম্মেলনে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন সমিতির কেন্দ্রীয় সভাপতি প্রতাপ চন্দ্র সিংহ। সম্মানিত অতিথি ছিলেন সিনিয়র সহকারী জজ শ্যামকান্ত সিংহ, গাইনী বিশেষজ্ঞ ডা: নমিতা সিনহা ও ব্যাংকার সনজিব কুমার সিংহ। বিশেষ অতিথি ছিলেন মসকস’র কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক কমলাবাবু সিংহ, কেন্দ্রীয় সহ সভাপতি স্বপন কুমার সিংহ ও স্বপন কুমার সিংহ স্বপন। স্বাগত বক্তব্য রাখেন সিলেট জেলা শাখার সহ সভাপতি ডা: উচিত কুমার সিংহ। বক্তব্য রাখেন, সমাজসেবী দীপাল কুমার সিংহ, মন্টুরাজ সিংহ, মণিসেনা সিংহ, সুজিত সিংহ, উত্তম কুমার সিংহ। গীতাপাঠ করেন প্রসন্ন কুমার সিংহ। শহীদ বুদ্ধিজীবি মাজারে পুষ্পস্তবক অর্পণ শেষে শুরু হওয়া সম্মেলন শেষে সংগঠনের কাউন্সিল অনুষ্ঠিত হয়। কাউন্সিলে সিলেট জেলা শাখার কমিটি ঘোষণা করেন কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ।
দাবিগুলো হচ্ছে, যাচাই বাছাইক্রমে প্রকৃত মণিপুরী শহীদ ও মুক্তিযোদ্ধাদের নাম মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রনালয়ে তালিকাভুক্তকরণ। শহীদ ও মুক্তিযোদ্ধাদের স্বীকৃতি এবং তাদের বঞ্চিত পরিবারদের অধিকার প্রতিষ্ঠা। মণিপুরী অধ্যুষিত মৌলবীবাজারের কমলগঞ্জস্থ মণিপুরী ললিতকলা একাডেমী প্রাঙ্গনে ঐতিহাসিক বৃটিশ বিরোধী আন্দোলন, মহান ভাষা আন্দোলন, মহান মুক্তিযুদ্ধে শহীদ ও অংশগ্রহনকারী বীর মণিপুরী মুক্তিযোদ্ধাদের নাম তালিকা খচিত, স্বাধীন বাংলাদেশের স্থপতি জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর ম্যুরাল সম্বলিত দৃষ্টি নন্দন ‘স্বাধীনতা স্তম্ভ’ নির্মাণ। মণিপুরী নৃত্য এখন বিশ্বনন্দিত। আন্তর্জাতিক অঙ্গনে এর বিস্তৃতি অনেকটা বাংলাদেশ তথা সিলেট থেকেই এবং তা বিশ্বকবি, কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের মাধ্যমে। সেই ইতিহাস ধরে রাখতে রবীন্দ্র স্মৃতি বিজড়িত সিলেট নগরীর মাছিমপুরে নির্মাণাধীন ‘রবীন্দ্র স্মৃতি ভাষ্কর্য’ বাস্তবায়ন। ক্ষুদ্র জনজাতির পূর্ব পুরুষদের মৌরসী ভিটেবাড়ী, সম্পদে উত্তরাধীদের মালিকানা ও দখল নিশ্চিত করণ। নৃতাত্তি¡ক জনগোষ্ঠী অধ্যুষিত এলাকায় ‘আঞ্চলিক ভূমি আইন’ কার্যকর ও প্রথাগত ভূমি অধিকার আইনের রাষ্ট্রীয় স্বীকৃতি প্রদান। মণিপুরীসহ ক্ষুদ্র জাতিসত্ত¡ার জনগোষ্ঠীকে নিজ নিজ মাতৃভাষায় শিক্ষা দানের ব্যবস্থা ও নিজ নিজ মাতৃভাষায় সংবাদপত্রসহ গণমাধ্যম প্রকাশ-প্রচারের অধিকার প্রদান। দেশের রাষ্ট্রীয় প্রচার মাধ্যমে রুটিন মাফিক সকল সকল ক্ষুদ্র জাতিসত্ত¡ার জনগোষ্ঠীকে নিজ নিজ মাতৃভাষায় সংক্ষিপ্ত সংবাদ ও অনুষ্ঠান প্রচারের সুযোগ প্রদান। মণিপুরীসহ সকল ক্ষুদ্র জাতিসত্ত¡ার সার্বিক কল্যাণ ও উন্নয়নের লক্ষ্যে স্বতন্ত্র ‘ডেভেলপমেন্ট কাউন্সিল’ গঠন। মণিপুরী অধ্যুষিত সিলেট অঞ্চলের সকল পাবলিক মেডিকেল কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ে আঞ্চলিক (নৃতাত্তি¡ক) মণিপুরী কোটা সংরক্ষণ। দেশে-বিদেশে সমাদৃত ও সম্ভাবনাময় মণিপুরী তাঁত শিল্পের বিকাশ ও বাজার জাতের সুবিধার্থে সিলেট বিভাগের বিসিক শিল্প নগরী বা প্রস্তাবিত স্পেশাল ইকনোমিক জোন অথবা ইপিজেডে মণিপুরীদের জন্য স্থান সংরক্ষণ এবং বিভাগীয় নগরীতে শুল্কমুক্ত মণিপুরী হস্তশিল্প প্রদর্শনী ও বাজারজাত কেন্দ্রের জন্য স্থান বরাদ্ধ করা। মণিপুরীসহ সকল ক্ষুদ্র জাতিগোষ্ঠীর জন্য রাজধানী ঢাকায় সমন্বিত ‘ইনডিজিনাস কালচারাল ইনস্টিটিউট’ অথবা ‘বঙ্গবন্ধু ইনডিজিনাস টাওয়ার’ প্রতিষ্ঠা। যা দেশের রাজধানীতে নৃতাত্বিক জনগোষ্ঠীর পরিচয় বহনের পাশপাশি বৈচিত্রময় সংস্কৃতি বিকাশে কেন্দ্রীয় সমন্বয়কেন্দ্রের ভুমিকা পালন করতে পারে। মণিপুরীসহ সকল নৃতাত্তি¡ক জনগোষ্ঠীর প্রধান ধর্মীয় উৎসবের দিন ওই জনগোষ্ঠীর জন্য বিশেষ ছুটি ঘোষণা। মহান জাতীয় সংসদের সংরক্ষিত আসনে মণিপুরীসহ ক্ষুদ্র জাতিগোষ্ঠী থেকে পুরুষ/মহিলা সংসদ সদস্যপদ সংরক্ষণের মাধ্যমে নৃতাত্তি¡ক জনগোষ্ঠীকে দেশ ও জাতির সেবায় অংশগ্রহণের সুযোগ প্রদান। ক্ষুদ্র জাতিসত্ত¡ার জনগোষ্ঠীর জন্য পৃথক মন্ত্রণালয় গঠন ও মণিপুরীসহ সকল ক্ষুদ্র জাতিসত্ত¡ার সাংবিধানিক স্বীকৃতি।
ইতো পূর্বে এই ১৪ দফা দাবির স্মারকলিপি অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত, শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ, তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু, রেলমন্ত্রী সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত ও বেসরকারী বিমান পরিবহন ও পর্যটনমন্ত্রী মন্ত্রী রাশেদ খান মেননের কাছে প্রদান করা হয়েছে।

Developed by: