সর্বশেষ সংবাদ
সালমান শাহের মৃত্যু রহস্য উদঘাটনে সময় পেল পিবিআই  » «   এসডিসি কার্য্যনির্বাহী কমিটির সভা অনুষ্ঠিত  » «   মৌলভীবাজারের ৫ জনের যুদ্ধাপরাধের রায় যে কোনো দিন  » «   এরা এখনো বিশ্বাস করে না পৃথিবী গোল!  » «   সাগরে লঘুচাপ, হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টিপাতের পূর্বাভাস  » «   লাউয়াছড়ায় অবমুক্ত করা হয়েছে বিরল প্রজাতির লেজের ‘মোল’  » «   লন্ড‌নে এসিড হামলায় দু‌টি চোখ হারা‌লেন বাংলা‌দেশী তরুন  » «   জাফলংয়ে মাটি চাপায় কিশোরী নিহত, আহত ৪  » «   ক্লিনিক আর ডায়গনাস্টিক সেন্টারে সড়কজুড়ে যানজট  » «   কমরেড আ ফ ম মাহবুবুল হক আর নেই  » «   গোলাপগঞ্জে তেলবাহী লেগুনায় আগুন  » «   পিলখানা হত্যাকাণ্ড : হাইকোর্টের রায় ২৬ নভেম্বর  » «   লোদীর বাসায় মেয়র আরিফ: বিরোধের অবসান!  » «   নগরীতেে কোনদিন কোথায় স্মার্ট কার্ড বিতরণ  » «   সৌদির বিরুদ্ধে লেবাননের যুদ্ধ ঘোষণা!  » «  

সিলেটে জমে উঠেছে কোরবানীর পশুর হাট



11স্টাফ রিপোর্টার: আর মাত্র ৩দিন পর মুসলমানদের দ্বিতীয় ধর্মীয় উৎসব পবিত্র ঈদউল আযহা বা কোরবানীর ঈদ। প্রতি বছরের মতো এবারও জমে উঠেছে সিলেটের পশুর হাট। চলছে জমজমাট কেনা-বেচা। তবে এবার সারাদেশে উপর্যূপরি বন্যায় গরুর দাম গতবারের চেয়ে অনেকাংশ কম। বন্যার ধকল সইতে না পেরে অনেক কৃষক তাদের হালের বলদও বিক্রিকরে দিচ্ছেন। প্রতিবছর কুরবানীর জন্য সিলেটে প্রায় তিন লাখ গরুর চাহিদা থাকলেও এবার দেশীয় পশুর সংখ্যা তার চেয়ে বেশী রয়েছে। তাছারা ভারতীয় গরুও অনেকটা আমদানী হচ্ছে। ফলে এবার আর আমদানি নির্ভর থাকতে হচ্ছে না সিলেটের পশু ব্যবসায়ীদের। আর এ কারণে দামও অনেক কম হতে পারে বলে আশংকা করছেন ক্রেতা-বিক্রেতা সকলেই। একইভাবে চাহিদার তুলনায় পরিমাণে বেশী রয়েছে ছাগল-ভেড়াসহ অন্যান্য প্রাণীর সংখ্যাও। তবে, এজন্য হতাশ হওয়ার কারণ নেই জানিয়ে বিভাগীয় প্রাণি সম্পদ অফিস বলছে, প্রতি বছরই যথেষ্ট সংখ্যক বাইরের পশু মোটাতাজা পক্রিয়ায় বড়করে বেপারিরা হাটে নিয়ে আসে। এবারও আসবে। দেশীয় পশু বেশী হওয়ায় কোরবানীদাতারা তাদের পছন্দ মতো পশু ক্রয়করে কোরবানী দিবেন এবং যারা অধিক দামের কারনে কোরবানী দিতে পারেননা তারাও এবার কোরবানী দিতে আগ্রহী হবেন। সোমবার (২৮ আগষ্ট) সিলেটের বিভিন্ন এলাকা থেকে বিপুল সংখ্যক দেশীয় গরু-ছাগল কাজিরবাজার পশুর হাটে নিয়ে আসে বিক্রেতারা। ক্রেতারাও তাদের পছন্দমতো গরু দর-দাম করছেন। তবে বিক্রেতারা তাদের পশুর আশানুুরূপ দাম না উঠায় বিক্রি করছেননা। মঙ্গলবার থেকে চাঁদরাত পর্যন্ত নিয়মিত হাট বসবে কাজির বাজারে। বেপারিরা আশা করছেন নিয়মিত হাটসহ ৩দিন সময় আছে তাদের হাতে। এরমধ্যে গরুরদাম কিছুটা বৃদ্ধিপাবে। বিভিন্ন সুত্রে জানাযায় গত বছর সিলেটে প্রায় তিন লাখ গরু কুরবানী দেয়া হয়। এবার সে সংখ্যা চার থেকে পাচঁলাখ পেরিয়ে যাবে আশাকরা হচ্ছে। এদিকে নগরীর কাজির বাজার পশুর হাট ব্যাতিত আর কোথাও পশুর হাট বসানোর অনুমতি দেয়নি সিলেট সিটি কর্পোরেশন। নগরীর বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখা যায় প্রতিবছরের মতো এবারও একটি চিহ্নিত মহল এক জোট হয়ে নগরীর ভিবিন্ন স্থানে অবৈধ পশুর হাট বসাতে শুরু করেছে। প্রতিবছর কোরবানী এলেই এই মহলটি নগরীতে অবৈধ পশুর হাট বসিয়ে টুল আদায় করে। এর মধ্যে রয়েছে নগরীর ল’কলেজ সংলগ্ন মাইক্রোবাস স্ট্যান্ড, মাছিমপুর ক্রীড়া কমপ্লেক্স সংলগ্ন চালিবন্দর-উপশহর সড়ক, সোবহানীঘাট ময়না মিয়ার জায়গা, গ্যাস অফিস সংলগ্ন মাছিমপুর সড়ক, দক্ষিণ সুরমার ঝালোপাড়ায় সুরমার নদীর তীরে, আম্বরখানা ইলেকট্রিক সাপ্লাই রোড, লাক্কাতুরা এলাকায়, আখালিয়া, মদীনা মার্কেট, রিকাবিবাজার ও বাগবাড়ি এলাকা। ইতোমধ্যে বেশকটি অবৈধ পশুর হাট পুলিশ উচ্ছেদ করেছে। অবৈধ হাট বসানোর কারনে বেপারিরা নগরীতে গরু নিয়ে প্রবেশ করতে পারছেনা।
সিলেট সিটি করর্পোরেশন সুত্রে জানাযায়, এবার একমাত্র কাজিরবাজার বৈধ পশুর হাট ছাড়া নগরীতে আর কোন পশুর হাট বসানোর ইজারা বা অনুমতি দেয়নি সিটি করর্পোরেশন। অবৈধ হাট বসলে পুলিশকে এ্যাকশন নিতে বলা হয়েছে। ইতোমধ্যে দেশের বিভিন্ন জায়গা থেকে বিক্রেতারা গরু-ছাগল নিয়ে সিলেট আসছেন। এছাড়া ভারত ও নেপালের গরুও রয়েছে কাজিরবাজার পশু হাটে। আর বাংলাদেশ ব্যাংকের তত্ত্বাবধানে বাজারে বসানো হয়েছে জাল নোট সনাক্ত করণ বুথ ও জেলা প্রাণী সম্পদ দপ্তরের তত্ত্বাবধানে রাখা হয়েছে চিকিৎসক। অনেকে তাৎক্ষনিক সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম হোয়াটসঅ্যাপ ও ফেইসবুকের মাধ্যমে গরুর ছবি পাঠিয়ে ক্রয় করছেন পছন্দের গরু। সিলেটের সবচেয়ে বড় পশুর হাট কাজিরবাজার হাট। দীর্ঘ দিন থেকে ঐতিহ্যবাহী এ স্থানে গরু-ছাগলের হাট বসে। সিলেটের ধনাঢ্য ব্যক্তিরা কুরবানীর জন এখান থেকে গরু-ছাগল ক্রয় করে থাকেন। জনগন যাতে নির্বিগ্নে পশুর হাটে তাদের পছন্দ মতো পশু ক্রয় করতে পারেন সেই লক্ষে সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশ প্রশাসন ও র‌্যাব পশুর হাটে নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করেছে। রয়েছে একাদিক সাদা পোশাকদারী পুলিশ ও র‌্যাব। এছাড়া বাজার কমিটির পক্ষ থেকে নিজস্ব সেচ্ছা সেবক দলও কাজ করছে।

Developed by: