সর্বশেষ সংবাদ
সিলেটে ৫৭৬ মণ্ডপে দুর্গাপূজা, থাকছে তিনস্তরের নিরাপত্তা  » «   জঙ্গি অর্থায়নের অভিযোগে গ্রেপ্তার ১১ জনের নাম প্রকাশ  » «   মানবতা বিরোধী অপরাধে দোষী সাব্যস্ত সু চি-সেনাপ্রধান  » «   শাবির ভর্তি পরীক্ষা ১৮ নভেম্বর  » «   তিন ছেলে পুলিশ কর্মকর্তা, তবু ভিক্ষা করেন মা!  » «   চালের দামের লাগাম টানতে নিষেধাজ্ঞা উঠল প্লাস্টিকের বস্তা থেকে  » «   লিজে আনা বোয়িং ফেরতের উপায় খুঁজছে বিমান  » «   লন্ডনে পাতাল রেলে বিস্ফোরণ ‘সন্ত্রাসী হামলা’, আহত ১৮  » «   মহানগর কমিটির সভা: এসডিসির সদস্য আব্দুস শুকুর স্মরণে দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত  » «   মিরতিংগা চা বাগানে মস্তকবিহিন লাশ উদ্ধার, আটক ২  » «   অভিনয় ছাড়ছেন মিশা সওদাগর  » «   লাউয়াছড়ায় গলায় ছুরি ধরে ট্রেনের দুই যাত্রীর টাকা ও মোবাইল ফোন ছিনতাই  » «   মিয়ানমারে সাইবার হামলা চালিয়েছে বাংলাদেশি হ্যাকার গ্রুপ  » «   রাখাইনে সহিংসতায় দায়ী পাকিস্তান ও আইএসআই  » «   নবীগঞ্জে নির্বাচনী সহিংসতায় নিহত ১, আহত ২০  » «  

বাংলাদেশের চলমান বন্যার জন্য ভারত দায়ী: ফারাক্কা কমিটি



19aপ্রান্তডেস্ক: : বাংলাদেশে চলমান বন্যার জন্য উজানের দেশ অর্থাৎ ভারত থেকে নেমে আসা পানিকেই দায়ী করেছেন আন্তর্জাতিক ফারাক্কা কমিটি নিউইয়র্ক ও বাংলাদেশ কমিটি।
শনিবার ঢাকায় আয়োজিত আন্তর্জাতিক ফারাক্কা কমিটির এক যৌথ সংবাদ সম্মেলনে এ কথা জানানো হয়। সম্মেলনে আরো জানানো হয়- নদী ও পানি বিশেষজ্ঞদের মতে, বন্যার ৯২ ভাগ পানিই বাংলাদেশের উপর দিয়ে প্রবাহিত নদীর উজানের অববাহিকা থেকে আসে। বাকি ৮ ভাগ পানি স্থানীয় বৃষ্টিপাত থেকে আসে।
সংবাদ সম্মেলনে আন্তর্জাতিক ফারাক্কা কমিটি নিউইয়র্কের চেয়ারম্যান আতিকুর রহমান সালু বলেন, নদীগুলোর উজানের অববাহিকায় যথেচ্ছ ড্যাম ও ব্যারেজ নির্মাণের ফলে উপমহাদেশের অনেক নদী মরতে শুরু করেছে। কেবলমাত্র বাংলাদেশের গঙ্গাবিধৌত অঞ্চলেই ৩০টি নদীর অকাল মৃত্যু ঘটেছে। আবার নতুন নতুন চর জেগে উঠায় বর্ষায় যথেষ্ট পানি ধারণ করে সাগরে বয়ে নিতে না পারায় নদীর দু’তীর উপচে বন্যার সৃষ্টি হচ্ছে। অপরদিকে শুকনো মৌসুমে পানির অভাবে মরুকরণ দেখা দিচ্ছে। দেখা দিয়েছে মারাত্মক পরিবেশ বিপর্যয়।
আতিকুর রহমান সালু বলেন, তিস্তার পানি এখন বাংলাদেশ-ভারত সীমান্তের ওপারে মহানন্দা ও গঙ্গা নদী দিয়ে আরো দক্ষিণে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। আর তিস্তা নদীকে বাংলাদেশে মেরে ফেলা হচ্ছে। অপরদিকে, ব্রহ্মপুত্রের পানি প্রবাহ তার স্বাভাবিক গতিপথ থেকে সরিয়ে নিতে ভারত যে আন্তঃনদী সংযোগ মহাপরিকল্পনা নিয়েছে তা বাস্তবায়ন করলে বাংলাদেশ আর নদীমাতৃক থাকবে না। তাই সমন্বিত, টেকসই ও আন্তর্জাতিক সহযোগিতায় নদীগুলো বাঁচিয়ে রাখতে হবে।
সংবাদ সম্মেলনে আন্তর্জাতিক ফারাক্কা কমিটি বাংলাদেশের সভাপতি অধ্যাপক জসিম উদ্দিন আহমাদ বলেন, এ বন্যা মানব সৃষ্ট। শুকনো মৌসুমে সব স্লুইস গেট বন্ধ করা ও বর্ষা এলে খুলে দেয়া হচ্ছে। উজানে এবং একই সঙ্গে বাংলাদেশে আরো কয়েকদিনের বৃষ্টিপাতের পূর্বাভাস রয়েছে। ফলে এবার ১৯৮৮ ও ১৯৯৮ সালের মতো ভয়াবহ বন্যা পরিস্থিতি সৃষ্টি হতে পারে।
সম্প্রতি অতিবৃষ্টি ও পাহাড়ি ঢলের কারণে পশ্চিমবঙ্গ, বাংলাদেশসহ প্রতিবেশী এলাকাগুলোয় বন্যা দেখা দিয়েছে। অন্যদিকে- বাংলাদেশ, নেপাল ও ভারতে যখন ব্যাপক বন্যা দেখা দিয়েছে, ঠিক ওই সময় পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায় তার রাজ্যে বন্যার জন্য ঢাকা, দিল্লি ও কাঠমান্ডুকে দোষারোপ করেছেন।
পশ্চিমবঙ্গের মূখ্যমন্ত্রী মমতার অভিযোগের পর সে রাজ্যের সেচমন্ত্রী রাজীব বন্দোপাধ্যায় সংবাদমাধ্যমকে বলেছেন, মূলত নেপাল ও বিহার থেকে উচ্চ মাত্রার পানি প্রবাহের কারণেই তার রাজ্যে বন্যা পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে। তথ্যসূত্র: পার্স টুডে

Developed by: