সর্বশেষ সংবাদ
সালমান শাহের মৃত্যু রহস্য উদঘাটনে সময় পেল পিবিআই  » «   এসডিসি কার্য্যনির্বাহী কমিটির সভা অনুষ্ঠিত  » «   মৌলভীবাজারের ৫ জনের যুদ্ধাপরাধের রায় যে কোনো দিন  » «   এরা এখনো বিশ্বাস করে না পৃথিবী গোল!  » «   সাগরে লঘুচাপ, হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টিপাতের পূর্বাভাস  » «   লাউয়াছড়ায় অবমুক্ত করা হয়েছে বিরল প্রজাতির লেজের ‘মোল’  » «   লন্ড‌নে এসিড হামলায় দু‌টি চোখ হারা‌লেন বাংলা‌দেশী তরুন  » «   জাফলংয়ে মাটি চাপায় কিশোরী নিহত, আহত ৪  » «   ক্লিনিক আর ডায়গনাস্টিক সেন্টারে সড়কজুড়ে যানজট  » «   কমরেড আ ফ ম মাহবুবুল হক আর নেই  » «   গোলাপগঞ্জে তেলবাহী লেগুনায় আগুন  » «   পিলখানা হত্যাকাণ্ড : হাইকোর্টের রায় ২৬ নভেম্বর  » «   লোদীর বাসায় মেয়র আরিফ: বিরোধের অবসান!  » «   নগরীতেে কোনদিন কোথায় স্মার্ট কার্ড বিতরণ  » «   সৌদির বিরুদ্ধে লেবাননের যুদ্ধ ঘোষণা!  » «  

‘বন্যায় সৃষ্ট সমস্যা মোকাবিলায় সরকার সক্ষম’



16aguপ্রান্তডেস্ক: : বন্যার কারণে দেশে যে সমস্যা তৈরি হয়েছে সেটি মোকাবিলায় সরকার সক্ষম বলে জানিয়েছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত।
বুধবার দুপুরে হোটেল পূর্বাণীতে ‘সোনালী ব্যাংক ও প্রাণ ডেইরি হাব গাভি পালন ঋণ কর্মসূচির সফল বাস্তবায়ন’ লক্ষ্যে সোনালী ব্যাংক ও প্রাণ ডেইরি লিমিটেডের মধ্যে সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে এ কথা বলেন তিনি।
অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘আকস্মিক বন্যার কারণে অনেক অসুবিধা হয়। বর্তমানে দেশে চাল আমদানিটা অনেক বেশি। চালের দামও সারা বিশ্বে অনেক বেড়ে গেছে। তারপরও আমাদের এই চাল আনতেই হবে। দেশের মানুষকে সুখে রাখতে এটি আমাদের করতে হবে। বাংলাদেশ এখন অভাবে নেই। সাময়িক একটা অসুবিধার সৃষ্টি হয়েছে। তাতে অতিরিক্ত পয়সা লাগতে পারে। সেটা খরচ করার সক্ষমতা আমাদের আছে।’
তিনি বলেন, ‘প্রায় আট বছর আমরা কনসেস্টেন্ট ইকনোমির মধ্যে আছি। এর প্রধান বিষয় হচ্ছে আমাদের প্রত্যেক বছরই প্রবৃদ্ধি। এই প্রবৃদ্ধির হার ৬ শতাংশ থেকে বেড়ে এখন ৭ শতাংশে পৌঁছেছে। তবে তারও একটু বেশি আশা করছি আমরা। একটা দেশের চরিত্র পরিবর্তন ও একটা দেশের মানুষের সুখ হাসিল করার জন্যে যা সব থেকে প্রয়োজন সেটা হচ্ছে কনসেস্টেন্ট গ্রোথ। বিগত আট বছর ধরে আমরা আমাদের কনসেস্টেন্ট গ্রোথ ধরে রেখেছি। আশা আগামী দুই বছরও এই গ্রোথ ধরে রাখতে পারব।’
অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিতের বক্তব্য শেষে তার উপস্থিতিতে উন্নত জাতের গাভী পালন ও দুগ্ধজাত পণ্যের উৎপাদন বাড়াতে প্রাণ ডেইরির চুক্তিবদ্ধ খামারিদের সহজ শর্তে জামানতবিহীন ঋণ দিতে রাষ্ট্রায়ত্ত সোনালী ব্যাংক ও প্রাণ-আরএফএল গ্রুপের মধ্যে এক সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর হয়।
প্রাণ-আরএফএল গ্রুপের পরিচালক (করপোরেট ফাইন্যান্স) উজমা চৌধুরী এবং সোনালী ব্যাংকের মহাব্যবস্থাপক রফিকুল ইসলাম প্রতিষ্ঠান দুটির পক্ষে সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর করেন।
এ সময় প্রাণ-আরএফএল গ্রুপের চেয়ারম্যান ও সিইও আহসান খান চৌধুরী বলেন, প্রাণ এর চুক্তিবদ্ধ খামারিদের গাভী ক্রয়, শেড স্থাপন, মিল্কিং মেশিন, চপার মেশিন, দুধ বহনের অ্যালুমিনিয়াম ক্যানসহ খামার ব্যবস্থাপনার আধুনিক যন্ত্রপাতি ক্রয়ে এ ঋণ প্রদান করা হবে।
তিনি আরো বলেন, ‘নাটোরের গুরুদাসপুর, পাবনার চাটমোহর, সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুর ও বাঘাবাড়ী এবং রংপুরে অবস্থিত প্রাণের পাঁচটি ডেইরি হাবের অধীনে ১১ হাজারের বেশি রেজিস্টার্ড দুগ্ধ খামারি রয়েছেন। এসব খামারির কাছে প্রায় ৫৫ হাজার গবাদি পশু রয়েছে। প্রাণ ডেইরি এসব গবাদিপশুর লালন-পালন, টিকা, চিকিৎসা সেবা, খামার স্থাপন বিষয়ক প্রশিক্ষণ, কৃত্রিম প্রজনন প্রভৃতি সেবা প্রদান করে থাকে।’
অনুষ্ঠানে সোনালী ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী মো. ওবায়েদ উল্লাহ আল মাসুদ বলেন, ‘দেশের কৃষি শিল্পসহ অন্যান্য সম্ভাবনাময় খাতগুলোতে সোনালী ব্যাংক ঋণ সহায়তা প্রদান করে থাকে। দেশের দুগ্ধ শিল্পের উন্নয়নে সরকারি ও বেসরকারি পর্যায়ে যেসব কাজ চলছে প্রাণ ডেইরি তাদের মধ্যে অন্যতম। এ ঋণ প্রদানের উদ্দেশ্য হচ্ছে দেশের দুগ্ধ শিল্পের বিকাশ ঘটিয়ে অপুষ্টি দূরীকরণসহ যুবক ও যুব মহিলাদের আত্মকর্মসংস্থান সৃষ্টি করা।’
চুক্তি স্মাক্ষর অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর ফজলে কবির, আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগের সচিব ইউনুসুর রহমান, সোনালী ব্যাংকের পরিচালনাপর্ষদের চেয়ারম্যান আশরাফুল মকবুল, প্রাণ এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক ইলিয়াছ মৃধাসহ প্রতিষ্ঠানের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

Developed by: