সর্বশেষ সংবাদ
সুরমা নদীর তীর দখলে খোদ সিটি করপোরেশন  » «   কেন বাদ দেয়া হলো মুমিনুলকে?  » «   নাটকে একসঙ্গে তিন বন্ধু  » «   ৬ দিন হচ্ছে ঈদের ছুটি  » «   গোয়াইনঘাটের সাড়ে তিন লক্ষ মানুষ পানি বন্দি  » «   ‘নিহত জঙ্গি ছাত্র শিবির করতো, ধানমন্ডি ৩২ নম্বরে হামলার পরিকল্পনা ছিল’  » «   প্রতিবছর লাখ লাখ শিশু হারিয়ে যায় কেন?  » «   পরিবহন জটিলতায় কৈলাশটিলা গ্যাস ফিল্ডে অচলাবস্থা  » «   গোলাপগঞ্জে যুবক অপহরণ, প্রতিবাদে রাস্তা অবরোধ  » «   নৌকা যাদের ভরসা  » «   শাহ্জালাল মাজারে বখাটে কর্তৃক মহিলাদের হয়রানীর অভিযোগ  » «   রুবির সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করছে পিবিআই  » «   সিলেটে ২ ছাত্রলীগ কর্মীর উপর হামলার ঘটনায় ছাত্রশিবিরের বিবৃতি  » «   সিলেটে সবজির দাম বেড়েছে  » «   টিলা খেকোদের নিয়ন্ত্রনে সিলেট পরিবেশ অধিদপ্তর  » «  

সফল হয়েছে মুক্তামনির হাতের অস্ত্রোপচার



newপ্রান্তডেস্ক:চর্মরোগে আক্রান্ত হয়ে ঢাকা মেডিকেলে চিকিৎসাধীন সাতক্ষীরার শিশু মুক্তামনির হাতের সফল অস্ত্রোপচার শেষ হয়েছে। শনিবার সকাল ১১টা ২৫মিনিটে তার অস্ত্রোপচার শেষ হয়। পুরোপুরি সুস্থ হতে তার হাতে আরও পাঁচটি অস্ত্রোপচার করতে হবে বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা।
অস্ত্রোপচারের পর সংবাদ সম্মেলন করে মুক্তমনির অবস্থা জানানো হয়। সংবাদ সম্মেলনে ঢাকা মেডিকেলের বার্ন ইউনিটের সমন্বয়ক ডা. সামন্ত লাল বলেন, ‘সফলভাবেই মুক্তামনির অস্ত্রোপচার শেষ হয়েছে। যে হাতে টিউমার হয়েছিল সেই হাত রেখেই তার অস্ত্রোপচার করা হয়েছে। অস্ত্রোপচারের পর তার জ্ঞানও ফিরেছে। তাকে হাসপাতালের আইসিইউতে রাখা হয়েছে।’ মুক্তমনির জন্য তিনি দেশবাসীর কাছে দোয়া চেয়েছেন।
অপারেশনে অংশ নেয়া চিকিৎসক ডা. আবুল কালাম বলেন, ‘মুক্তামনির প্রাথমিক অস্ত্রোপচার শেষ হয়েছে। সুস্থ হতে আরও কয়েকটি অপারেশন লাগবে। অপারেশনের প্রথম পর্যায় শেষ হওয়ায় আল্লাহর কাছে শোকর আদায় করছি।’
এক প্রশ্নের জবাবে আবুল কালাম বলেন, ‘মুক্তামনি এখনও শঙ্কামুক্ত নয়। তার রক্তক্ষরণের সম্ভবনাও রয়েছে। তাকে অন্তত ছয় সপ্তাহ পর্যবেক্ষণে রাখা হবে।’
সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন, ঢামেকের বার্ন ইউনিটের অধ্যাপক সাজ্জাদ খোন্দকার, প্রধানমন্ত্রীর দপ্তরের পরিচালক ডা. জুলফিকার লেলিন ও এনেসথেসিয়া বিভাগের বেশ কয়েকজন চিকিৎসক।
এর আগে সকাল পৌনে নয়টার দিকে মুক্তামনির হাতে অস্ত্রোপচার শুরু করেন চিকিৎসকরা। আড়াই ঘণ্টারও বেশি সময় ধরে অস্ত্রোপচার করেন ১৩ সদস্যর একটি চিকিৎসক দল।
স্বাভাবিকভাবে জন্ম নেয়ার দুই বছর পর মুক্তামনির ডান হাতে ছোট একটি টিউমার দেখা যায়, যা ধীরে ধীরে বড় হতে শুরু করে। গত দুই বছর ধরে তা ব্যাপক আকারে বাড়তে থাকে। গত ১২ জুলাই ঢামেকের বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইউনিটে ভর্তি করা হয় মুক্তামনিকে।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মুক্তামনির ব্যাপারে জেনে তার চিকিৎসার সব দায়িত্ব গ্রহণ করেন। পরে স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম মুক্তামনিকে দেখতে আসেন ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে। তার চিকিৎসার সব দায়িত্ব স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের বলে জানান মন্ত্রী।
গত ২ আগস্ট ১৩ সদস্য বিশিষ্ট একটি মেডিকেল বোর্ডের মিটিংয়ে সবধরনের সতর্কতা অবলম্বন করে মুক্তামনির চিকিৎসা করার সিদ্ধান্ত হয়। এরপর তার হাতে অস্ত্রোপচার করা হয়।
এতোদিন মুক্তামনির রোগটিকে বিরল রোগ বলা হলেও বায়োপসি করার পর জানা যায় তার রোগটি বিরল নয়। তবে বায়োপসি প্রতিবেদনে মুক্তামনির রক্তনালীতে টিউমার ধরা পড়ে।

Developed by: