সর্বশেষ সংবাদ
মৃত্যুর আগে পানি চেয়েও পায়নি কিশোর  » «   সিলেটে ৫৭৬ মণ্ডপে দুর্গাপূজা, থাকছে তিনস্তরের নিরাপত্তা  » «   জঙ্গি অর্থায়নের অভিযোগে গ্রেপ্তার ১১ জনের নাম প্রকাশ  » «   মানবতা বিরোধী অপরাধে দোষী সাব্যস্ত সু চি-সেনাপ্রধান  » «   শাবির ভর্তি পরীক্ষা ১৮ নভেম্বর  » «   তিন ছেলে পুলিশ কর্মকর্তা, তবু ভিক্ষা করেন মা!  » «   চালের দামের লাগাম টানতে নিষেধাজ্ঞা উঠল প্লাস্টিকের বস্তা থেকে  » «   লিজে আনা বোয়িং ফেরতের উপায় খুঁজছে বিমান  » «   লন্ডনে পাতাল রেলে বিস্ফোরণ ‘সন্ত্রাসী হামলা’, আহত ১৮  » «   মহানগর কমিটির সভা: এসডিসির সদস্য আব্দুস শুকুর স্মরণে দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত  » «   মিরতিংগা চা বাগানে মস্তকবিহিন লাশ উদ্ধার, আটক ২  » «   অভিনয় ছাড়ছেন মিশা সওদাগর  » «   লাউয়াছড়ায় গলায় ছুরি ধরে ট্রেনের দুই যাত্রীর টাকা ও মোবাইল ফোন ছিনতাই  » «   মিয়ানমারে সাইবার হামলা চালিয়েছে বাংলাদেশি হ্যাকার গ্রুপ  » «   রাখাইনে সহিংসতায় দায়ী পাকিস্তান ও আইএসআই  » «  

হজ পালনে সৃষ্ট সমস্যা দূর করুন



12এবারে হজযাত্রা শুরু হয়েছে ২৪ জুলাই,  কিন্তু নির্বিঘেœ নয়। প্রতিদিনই নির্ধারিত হজফ্লাইট বাতিল হচ্ছে। এ পর্যন্ত (৩ আগস্ট) বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সে ১২ ও সৌদি এয়ারলাইন্সের ৩ টি ফ্লাইট বাতিল হয়েছে। ফলে প্রায় ৩৪ হাজার যাত্রীর হজযাত্রা অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে। সংশ্লিষ্ট বিভাগ ও দায়িত্বশীলরা বলছেন, সৌদি সরকারের নতুন দুটি নিয়মের কারণে এবার ভিসা জটিলতা দেখা দিয়েছে,  জানা যায় ২০১৬ সালে ৭ আগস্ট সৌদি আরব মন্ত্রীসভা নতুন ভিসা কাঠামো অনুমোদন করে। আর তা কার্যকর হয় ২০১৬ সালের ২ অক্টোবর থেকে।
সৌদি সরকারের নতুন ভিসা নিয়মাবলীতে উল্লেখ আছে যারা গত দু’বছরের মধ্যে দ্বিতীয়বার হজে যাচ্ছেন তাদের অতিরিক্ত ২ হাজার রিয়াল বা ৪৫ হাজার টাকা দিতে হবে না হলে ভিসা হবে না, অন্যটি হলো-মোয়াল্লিম ফি এবার দ্বিগুন দিতে হবে, আগে এ ফি ছিল ৫ শ থেকে ৭শ রিয়াল এবার তা হয়েয়ে ১৫শ রিয়াল। হজ এজেন্সিগুলো বলছে বাড়তি ফির কারণে তারা মোয়াল্লিম ফি ঠিক করতে পারেনি, আর এ ঠিক করতে না পারাতেই তারা হজ যাত্রীদের পাঠাতে পারছেন না।
সৃষ্ট সমস্যা সমাধানে হজ এজেন্সির মালিকরা ধর্ম মন্ত্রণালয়ের দ্বারস্থ হয়েছেন এবং গণ বিজ্ঞপ্তি জারির দাবি জানিয়েছেন।  মন্ত্রণালয় তাদের আশ্বাস দিলেও কোনো ব্যবস্থা গ্রহণ না করে  সমস্যা সমাধানের জন্য সৌদির সরকারের দ্বারস্থ হয়েছেন। সার্বিক পরিস্থিতি পর্যবেক্ষনে এ সিদ্ধান্তে উপনিত হওয়া যায়। হজযাত্রা নিয়ে যে সমস্যা প্রতিবছর সৃষ্টি  হয় তার জন্য দায়ী হজ এজেন্সিগুলো গা ছাড়া ভাব। আর সরকারের দিক থেকে সমস্যা হলো সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা সময়মত অপর পক্ষের সাথে যোগাযোগ করেন না।
আমরা উভয় পক্ষকে (হাব ও সরকার) তাদের দায়িত্ব পালনে আরো বেশি সতর্ক হওয়ার আহবান জানাই এবং ইসলাম ধর্মের ৫ স্তম্ভের অন্যতম হজ পালনের সৃষ্ট সমস্যা চিরতরে দূর করতে সরকার ও হাবকে অনুরোধ করি।

Developed by: