সর্বশেষ সংবাদ
রাজ-শুভশ্রী এক বাঁধনে  » «   বাংলাদেশ নতুন যুগে প্রবেশ করেছে : প্রধানমন্ত্রী  » «   আগাম বন্যার আশঙ্কা  » «   ঈদে আসছে ‘আমার প্রেম আমার প্রিয়া’  » «   বজ্রপাতে একদিনে সারাদেশে ৩০ জনের মৃত্যু  » «   জাতীয় অধ্যাপক মুস্তাফা নূরউল ইসলামের ইন্তেকাল  » «   জাতিসংঘ মিশন : সিলেটের ২০০ স্বপ্নবাজ তরুণের নেতৃত্বে হাওরসন্তান সোহাগ  » «   বিয়ানীবাজারে বুদ্ধি প্রতিবন্ধি যুবতীকে ধর্ষণের অভিযোগে যুবক গ্রেফতার  » «   বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হচ্ছেন সোনম কাপুর আর আনন্দ আহুজা  » «   এসএসসি ফল পুনঃনিরীক্ষন শুরু : একাদশে ভর্তি ১৩ মে থেকে  » «   ষাঁড়ের গুতোয় কৃষকের মৃত্যু  » «   পা-ই তার সাফল্যের চাবিকাটি  » «   গাছ ভেঙে পড়ায় সিলেটের সাথে রেল যোগাযোগ বন্ধ  » «   এসএসসিতে সিলেটে পাস ৭০.৪২% : জিপিএ-৫ ৩১৯১ জন  » «   নিয়োগ চলছে কামা পরিবহন (প্রা. লি.)-এ।  » «  

পৃথিবী সমান এলাকা জুড়ে ঝড় নেপচুনে



5প্রান্ত ডেস্ক: এর আগে এত বড় ঝড় নেপচুনের মাটিতে আর ওঠেনি। একটা গোটা পৃথিবীর সমান জায়গা জুড়ে তুমুল ঝড় উঠেছে গ্রহটিতে। নেপচুনের বিষুবরেখা বরাবর এই ঝড় উঠে। নেপচুনের আকাশে ধরা পড়েছে রঙিন মেঘ, যা রীতিমতো দ্রুত বেগে অবস্থান পরিবর্তন করছে বলে জানিয়েছেন বিজ্ঞানীরা। ক্যালোফোর্নিয়া-বার্কলে বিশ্ববিদ্যালয়ের মহাকাশ বিজ্ঞানের গবেষক নেড মল্টারের চোখেই প্রথম ধরা পড়ে নেপচুনের বুকে এই পরিবর্তন।

এই সময় সাধারণত শান্ত থাকে নেপচুনের বায়ুমণ্ডল। এই গ্রহের মধ্য অক্ষাংশ বরাবর কিছু মেঘ ঘোরাফেরা করতে দেখা যায়। কিন্তু মেঘের সমারোহ ও তাদের দ্রুত অবস্থান বদলই প্রমাণ দিচ্ছে বড়সড় ঝড়ের। খুব স্পষ্টভাবে পরিলক্ষিত হচ্ছে সেই ঝড়। হাওয়াই দ্বীপপুঞ্জের মৌনকিয়া এলাকার কিয়াক মানমন্দির থেকে এই পর্যবেক্ষণ দেখা গেছে। মল্টার জানাচ্ছেন, প্রায় প্রতিদিন সন্ধ্যা নাগাদ এই ঝড় উঠছে। আর তা পর্যবেক্ষণ করা যাচ্ছে অনেকক্ষণ ধরে, কারণ তখনও পুরোপুরি অন্ধকার নামছে না।

পর্যবেক্ষণে ধরা পড়েছে নেপচুনের বুকে প্রায় ৯০০০ কি.মি. এলাকা জুড়ে ঝড় উঠছে। যা নেপচুনের ব্যাসার্ধের এক তৃতীয়াংশ। নেপচুনের ৩০ ডিগ্রি অক্ষাংশ ও দ্রাঘিমাংশে অবস্থান করছে ঝড়টি। মল্টারের মতে জুনের ২৬ তারিখ থেকে জুলাইয়ের ২ তারিখ পর্যন্ত এই ঝড় সবথেকে স্পষ্টভাবে দেখা গেছে। এই ঝড় ও মেঘের সন্তরণ নেপচুনের আবহাওয়া বুঝতে সাহায্য করবে বলে আশাবাদী বিজ্ঞানীরা। বায়ুমন্ডলের চরিত্র, মেঘের উৎপত্তি, তাদের গতিবিধি বোঝা যাবে বলেও মনে করছেন তারা।

Developed by: