সর্বশেষ সংবাদ
মৃত্যুর আগে পানি চেয়েও পায়নি কিশোর  » «   সিলেটে ৫৭৬ মণ্ডপে দুর্গাপূজা, থাকছে তিনস্তরের নিরাপত্তা  » «   জঙ্গি অর্থায়নের অভিযোগে গ্রেপ্তার ১১ জনের নাম প্রকাশ  » «   মানবতা বিরোধী অপরাধে দোষী সাব্যস্ত সু চি-সেনাপ্রধান  » «   শাবির ভর্তি পরীক্ষা ১৮ নভেম্বর  » «   তিন ছেলে পুলিশ কর্মকর্তা, তবু ভিক্ষা করেন মা!  » «   চালের দামের লাগাম টানতে নিষেধাজ্ঞা উঠল প্লাস্টিকের বস্তা থেকে  » «   লিজে আনা বোয়িং ফেরতের উপায় খুঁজছে বিমান  » «   লন্ডনে পাতাল রেলে বিস্ফোরণ ‘সন্ত্রাসী হামলা’, আহত ১৮  » «   মহানগর কমিটির সভা: এসডিসির সদস্য আব্দুস শুকুর স্মরণে দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত  » «   মিরতিংগা চা বাগানে মস্তকবিহিন লাশ উদ্ধার, আটক ২  » «   অভিনয় ছাড়ছেন মিশা সওদাগর  » «   লাউয়াছড়ায় গলায় ছুরি ধরে ট্রেনের দুই যাত্রীর টাকা ও মোবাইল ফোন ছিনতাই  » «   মিয়ানমারে সাইবার হামলা চালিয়েছে বাংলাদেশি হ্যাকার গ্রুপ  » «   রাখাইনে সহিংসতায় দায়ী পাকিস্তান ও আইএসআই  » «  

পরিবেশ রক্ষার্থে পাহাড় টিলা কাটা বন্ধ করুন



টানা বর্ষনে চট্টগ্রাম রাঙ্গঁমাটি ও বান্দরবনে পাহাড় ধসে মৃত্যুর মিছিল ক্রমশ দীর্ঘ হচ্ছে। গত ১৫ জুন পর্যন্ত এ দুর্ঘটনায় ৫জন সেনা সদস্যসহ ১৫০জনের মৃত্যুর খবর গনমাধ্যমে এসেছে।
২০০৭ সালথেকে শুরু হওয়া এ পাহাড় ধসের ফলে আজ পর্যন্ত ১১বছরে মৃতের সংখ্যা দাড়িয়েছে ৩৫১জন। গড়ে মৃত্যুর হার বছরে প্রায় ৩২জন। (এক পরিসংখানে জানাযায় ২০০৭ সালে ১২৭জন ২০০৮ সালে ১৪জন, ২০০৯সালে ৩জন, ২০১০ সালে ৩জন, ২০১১সালে ১৭জন, ২০১২ সালে ২৮জন, ২০১৩ সালে ২ জন, ২০১৪ সালে ১জন, ২০১৫ সালে ৬জন, ২০১৬ সালে ০ এবং ২০১৭ সালে এখন পর্যন্ত ১৫০ জন মৃত্যু বরন করেছেন।
প্রশ্ন হচ্ছে প্রাকৃতিক সৃষ্ট পাহাড় কেন ধসে পড়ছে আর প্রাণ হারাচ্ছে সৃষ্টির সেরা জীব মানুষ। পরিবেশ বিজ্ঞনীরা বলছেন পাহাড় দুই প্রকারের । একটা হচ্ছে মাটি ও পাথরের মিশ্রনে, অন্যটি মাটি ও বালু মিশ্রনে সৃষ্টি। তাদের মতে যে পাহাড় গুলো ধসে পড়ছে সেগুলো মাটি ও বালুর মিশ্রনে তেরী আর এর প্রধান কারণ হচ্ছে পাহাড় কাটা। রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের মতে পাহাড় এলাকায় সমতল ভূমির মানুষের বসতি স্থাপনের পূর্বে পাহাড় ধসের কোন ঘটনা ঘটেনি।
বিশেষজ্ঞদের মতে পাহাড় কোটে অপরিকল্পিত বসতি স্থাপন, গাছপালা কেটে উজাড় করার কারনে ভারী বর্ষনে মাটি নরম হয়ে গিয়ে ন্যাড়া ও কাটা পাহাড় ধসে পড়ে।
শুধু চট্টগ্রাম নয় পাগাড় টিলা অধ্যূষিত সিলেট অঞ্চলেও পাহাড় ও টিলা ধসে এখন পর্য্যন্ত বেশ কিছু প্রাণহানি ঘটেছ্ েতবে এগুলোর বেশীর ভাগই ঘটছে টিলাকাটতে গিয়ে। ৮০’র দশকে নগরীর ভিতরে এ ধরনের একটি টিলা ধসে ঘটেছিল কয়েকজন মানুষের প্রানহানী।
সিলেট অঞ্চলের ব্যাপক পাহাড় টিলা কাটার ফলে অনেক পাহাড় টিলা তাদের অস্তিত্ব হারিয়ে সমতল হয়ে গেছে এবং নগরীসহ সিলেটের বিভিন্ন অঞ্চলে টিলা ও পাহাড়কেটে অনেক বসতি গড়ে উঠেছে এবং এখনও গড়ে তোলা হচ্ছে। বলা যায় কতৃপক্ষের নিষেধাজ্ঞা ভূমিখেকো দস্যুরা মানছেননা ফলে যে কোন সময় ঘটতে পারে চট্টগ্রামের মত ভয়াবহ প্রাণহানির ঘটনা।
আমরা পাহাড়, টিলা কাটা সহ বসতি স্থাপন বন্ধে পরিবেশ অধিদপ্তরের নিষেধাজ্ঞা প্রয়োগে কঠোর ভূমিকা রাখতে প্রশাসন, আইন প্রয়োগকারী সংস্থাসহ বন ও পরিবেমন্ত্রণালয়ের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি।

Developed by: