সর্বশেষ সংবাদ
ঈদে বাড়ি ফেরার পথে প্রাণ গেলো ১৬ জনের  » «   বাংলাভাষার বানান: যে বিপত্তির বয়স প্রায় দুশো বছর  » «   সিলেটে ঈদের প্রধান জামাত সকাল ৯টায়  » «   আজ পবিত্র লাইলাতুল কদর  » «   নতুন চ্যালেঞ্জে রুবেল হোসেন  » «   আরও ১০ ‘পৃথিবী’র সন্ধান  » «   কোম্পানীগঞ্জের আরেফিন টিলায় ঝুঁকিপূর্ণ দশটি ঘর উচ্ছেদ করেছে প্রশাসন  » «   এসডিসির ইফতার মাহফিল আজ  » «   বাতিল দৈনিক সিলেটের ডাক’র ডিক্লারেশন  » «   সংকট নিয়েই সিলেট সরকারি কলেজে অনার্স কোর্স  » «   বাহুবলে মাকে গলা টিপে হত্যা, পুত্র গ্রেফতার  » «   জগন্নাথপুরে প্রতারণা মামলার সাজাপ্রাপ্ত পলাতক আসামী গ্রেপ্তার  » «   জৈন্তাপুরে ইয়াবাসহ মাদক ব্যবসায়ী আটক  » «   ৩ দিন ধরে অন্ধকারে ওসমানীনগরবাসী  » «   সিলেটে টিসিবির পন্য বিক্রিতে অনিয়ম  » «  

এবার বাজেট হবে ৪ লাখ ২০ হাজার কোটি টাকার: অর্থমন্ত্রী



9b086d3af2ca0776df8c1565eb61c0d3-IMG_1313প্রান্ত ডেস্কঃ এবার বাজেটের আকার ৪ লাখ ২০ হাজার কোটি টাকা হবে বলে জানিয়েছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। এ বাজেট বাস্তবায়ন হবে, এতে কোনো সন্দেহ নেই তাঁর মনে। গতকাল রোববার পূর্ব লন্ডনের ইম্প্রেশন মিলনায়তনে তাঁর সম্মানে আয়োজিত এক নাগরিক সংবর্ধনা সভায় অর্থমন্ত্রী এ কথা বলেন। যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগ ওই সভার আয়োজন করে।

অর্থমন্ত্রী বলেন, এই সরকারের অন্যতম লক্ষ্য ছিল বাজেট বা সরকারি ব্যয় বাড়িয়ে অভ্যন্তরীণ বাজারকে শক্তিশালী করা। সে কারণে ২০০৯ সালে মহাজোট সরকারের প্রথম বাজেট যেখানে ৯৫ হাজার কোটি টাকা ছিল, ২০১৬ সালে এসে তা ৩ লাখ ২০ হাজার কোটি টাকায় উন্নীত হয়। আর চলতি মেয়াদে বর্তমান সরকারের শেষ বাজেট ২০১৮-১৯ অর্থবছরে পাঁচ লাখ কোটি টাকা ছুঁবে বলে তিনি জানান।

অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত বলেন, ‘কিছু পশ্চিমা দেশ আর গণ্যমাধ্যম মিলে আমাদের বদনাম করতে চেয়েছিল। কিন্তু প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বলিষ্ঠ নেতৃত্বের কারণে কানাডার আদালতে প্রমাণিত হয়েছে, পদ্মা সেতু প্রকল্পে কোনো দুর্নীতি হয়নি।’

বিগত আট বছরে বাংলাদেশের অর্থনীতির নানা অগ্রগতির কথা তুলে ধরে অর্থমন্ত্রী বলেন, বর্তমান সরকার অর্থনৈতিক উন্নয়নের জন্য কিছু মূলনীতি নির্ধারণ করেছিল। যার অন্যতম হচ্ছে বিদ্যুৎ চাহিদা পূরণ, শিক্ষার প্রসার আর দারিদ্র্য বিমোচন। প্রধানমন্ত্রী বিশ্বাস করেন, বিদ্যুৎ আর শিক্ষা সহজলভ্য করে দিতে পারলে সরকার বা কারও কিছু করতে হবে না। মানুষ নিজেরাই উন্নয়নের পথ খুঁজে নেবে। প্রবাসী বিনিয়োগকারীদের উদ্দেশে তিনি বলেন, আগামী বছর থেকে গ্যাসের সংকটও কেটে যাবে। এরপর অন্তত ২০ বছর পর্যন্ত নিশ্চিতভাবে গ্যাস পাওয়া যাবে।

দেশে দারিদ্র্যের হার প্রায় ২২ শতাংশে নেমে এসেছে জানিয়ে অর্থমন্ত্রী বলেন, ২০২৪-২৫ সালে দেশে দারিদ্র্যের সমস্যা থাকবে না। তবে কর্মে অক্ষম ৭ থেকে ১৪ শতাংশ মানুষ সব সময় সরকারের ওপর নির্ভরশীল থাকবে—এটা সব উন্নত দেশেই রয়েছে। দেশের আর্থিক সামর্থ্যের ভিত আরও শক্তিশালী করতে সরকার দুই বিলিয়ন ডলারের সার্বভৌম তহবিল গঠনের উদ্যোগ নিয়েছে বলে জানান তিনি।

দ্বৈত নাগরিকত্ব আইন নিয়ে প্রবাসীদের উদ্বেগের জবাবে অর্থমন্ত্রী বলেন, আইনমন্ত্রী ইতিমধ্যে ঘোষণা দিয়েছেন যে প্রবাসীদের স্বার্থবিরোধী কিছু এ আইনে থাকবে না।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তৃতায় মুক্তিযুদ্ধ-বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক বলেন, প্রবাসে অবস্থানরত মুক্তিযোদ্ধারা যাতে হালনাগাদ তালিকায় নিবন্ধিত হতে পারেন, সে জন্য ব্যবস্থা নিয়েছে সরকার। আগামী মার্চ মাসে বাংলাদেশ দূতাবাসের মাধ্যমে ফরম সংগ্রহ ও জমা দিতে পারবেন প্রবাসীরা।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগের সভাপতি সুলতান মাহমুদ শরীফ। সাংবাদিক ও কলামিস্ট আবদুল গাফ্‌ফার চৌধুরীর লেখা মানপত্র পাঠ করেন যুক্তরাজ্য ছাত্রলীগের সহসভাপতি সারওয়ার কবির। যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ সাজিদুর রহমানের পরিচালনায় অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন জাতিসংঘে বাংলাদেশের সাবেক স্থায়ী প্রতিনিধি এ কে এম আবদুল মোমেন, যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগের শামসুদ্দিন খান, জালাল উদ্দিন ও আনোয়ারুজ্জামান চৌধুরী প্রমুখ।

Developed by: