সর্বশেষ সংবাদ
ফেঞ্চুগঞ্জ ইউনিয়ন ছাত্রদলের কমিটি : ঘোষণা উপজেলার, বাতিল জেলার  » «   ক্রীড়া সংগঠক আব্দুল কাদিরের মায়ের ইন্তেকাল  » «   রণবীর-দীপিকা বিয়ে নভেম্বরে?  » «   যাদুকর ম্যারাডোনার পায়ের অবস্থা করুণ  » «   একটু আগেবাগেই শীতের আগমণ  » «   চট্টগ্রামে আইয়ুব বাচ্চুর জানাযা বাদ আছর  » «   রাবণ পোড়ানো দর্শনকারী ভিড়ের উপর দিয়ে ছুটে গেলো ট্রেন : নিহত ৬০  » «   গোলাপঞ্জে ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স স্টেশন উদ্বোধন করলেন শিক্ষামন্ত্রী  » «   বিসর্জনের দিন সিলেটে আসনে ‘দেবী’  » «   বিভিন্ন পূজা মণ্ডপ পরিদর্শনে মেয়র আরিফ  » «   সিলেটে স্বয়ংক্রিয় কৃষি-আবহাওয়া স্টেশন স্থাপিত  » «   শীতে ত্বক সজীব রাখতে শাক-সবজি খান  » «   সিলেট ওসমানী বিমানবন্দর সংস্কার হচ্ছে প্রায় ৪ কোটি টাকা ব্যয়ে  » «   কোম্পানীগঞ্জে টাস্কফোর্সের অভিযানে পেলোডার মেশিন জব্দ  » «   ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন সংশোধনে সরকারকে নোটিশ  » «  

গোলাপগঞ্জ পৌর উপ-নির্বাচন : বিএনপি কী করবে?



125523
গোলাপগঞ্জ প্রতিনিধি
সিরাজুল জব্বার চৌধুরীর মৃত্যুতে শূণ্য হয়ে যায় গোলাপগঞ্জ পৌরসভায় মেয়রের পদ। মেয়র সিরাজুল জব্বার চৌধুরী দূরারোগ্য রোগে অাক্রান্ত হয়ে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গত ৩১ মে মৃত্যুবরণ করেন। ২০১৫ সালে ‘বিদ্রোহী প্রার্থী’ হিসেবে বিজয়ী হয়েছিলেন এই অাওয়ামী লীগ নেতা। আগামী ৩ অক্টোবর উপ নির্বাচনের দিনক্ষণ নির্ধারণ করেছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)।
প্রথম দিকের ঢামাঢোলে মনে হয়েছিল বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল (বিএনপি) নির্বাচনে যাচ্ছে। সিলেট সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনের মতো গোলাপগঞ্জেও জমে উঠবে নৌকা ও ধানের শীষের ভোটযুদ্ধ। এমনটিই প্রত্যাশা ছিল সাধারণ মানুষের, এমনকি দু’টি দলের নেতাকর্মীদের মাঝেও। কিন্তু শেষমেশ সেটি হয়ে উঠছে না।
দলের চেয়াররপার্সনের মুক্তির দাবিতে অান্দোলনে ব্যস্ত থাকা বিএনপি নেতারা বলছেন- অাগে দলের চেয়ারপার্সন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়ার মুক্তি, পরে ইলেকশন। সেজন্যই বিএনপির কেন্দ্র থেকে এখনও কাউকে দলীয় মনোনয়ন প্রদান করা হয়নি। অন্যদিকে নৌকা প্রতীকে সাবেক মেয়র জাকারিয়া অাহমদ পাপলুকে দলীয় মনোনয়ন দেয়া হয়েছে।
এর অাগে দলের প্রার্থী হিসেবে জেলা বিএনপির সহসভাপতি ও উপজেলা বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক মহিউস সুন্নাহ চৌধুরী নার্জিসকে স্থানীয়ভাবে মনোনয়ন দেয়া হয়েছিল। গত সপ্তাহে গোলাপগঞ্জে একসভায় নার্জিসের বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয়া হয়ছিল। সভায় জেলা বিএনপির সভাপতি আবুল কাহের চৌধুরী শামীম, ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুর রব চৌধুরীসহ উপজেলা ও পৌর বিএনপির নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। এসময় ৮ জনের নাম প্রস্তাব করা হলেও আলোচনার পর নার্জিসকে সমর্থন দিয়ে বাকি ৭ জন তাদের নাম প্রত্যাহার করে নেন। কিন্তু নার্জিস বিএনপি থেকে নির্বাচনে অংশ না নিয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে অংশ নিবেন বলেন জানিয়েছেন।
এর কারণ হিসেবে নার্জিসের মন্তব্য, গোলাপগঞ্জ পৌরসভার ৯টি ওয়ার্ডের মানুষ তাকে অনুরোধ করেছেন নির্দলীয়ভাবে যেনো তিনি নির্বাচনে অংশ নেন। এতে পৌরবাসী তার পাশে থাকবে। এমন অনুরোধেই স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়ে তার নির্বাচনে অাসা।
এদিকে দলীয়ভাবে নির্বাচনের বিষয়ে সিলেট জেলা বিএনপির সভাপতি অাবুল কাহের শামীম বলছেন, ‘কিসের নির্বাচন? দলের চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়াকে কারাবন্দী রেখে কোন নির্বাচনে বিএনপি যাবেনা। ধানের শীষ প্রতীকও কাউকে দেয়া হবে না। অনেকেই নিজেকে দলের প্রার্থী হিসেবে দাবি করছে। কিন্তু ধানের শীষ কাউকে দেয়া হয়নি।’
যদিও এর অাগে গোলাপগঞ্জ পৌরসভায় উপনির্বাচনে বিএনপি প্রার্থী দেবে বলে জেলা বিএনপির প্রেসবিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছিল। এখন নতুনকথা শোনাচ্ছে জেলা বিএনপি।
একজন প্রার্থী স্বেচ্ছাসেবকদল নেতা বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবীর রিজভী স্বাক্ষরিত একটি পত্র নির্বাচন অফিসের কাছে জমা দিয়েছেন ‘মনোনয়নপত্র’ হিসেবে।
এ ব্যাপারে জেলা বিএনপির সভাপতি শামীম বলেছেন- ‘এটা তার জানা নেই। কেন্দ্র থেকে এমন কিছু করা হলে অামরা তো জানতাম। এটা কেউ হয়তো জালিয়াতি করেছে। সোজাকথা বিএনপি গোলাপগঞ্জ পৌরসভার মেয়রপদে উপনির্বাচনে অংশ নিচ্ছে না। অাগে নেত্রীর মুক্তি, পরে ইলেকশন।’
গত শনিবার বিকাল পর্যন্ত উপজেলা নির্বাচন অফিসার সাইদুর রহমানের কাছ থেকে ৫ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র গ্রহণ করেছেন। তারা হলেন- সাবেক মেয়র ও উপজেলা আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক জাকারিয়া আহমদ পাপলু, জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি মহিউস সুন্নাহ চৌধুরী নার্জিস, যুক্তরাজ্য যুবলীগের যুগ্ম সম্পাদক আমিনুল ইসলাম রাবেল, পৌর বিএনপির সাবেক সভাপতি গোলাম কিবরিয়া চৌধুরী শাহিন, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকদলের অাহ্বায়ক রাজু আহমদ চৌধুরী।
প্রার্থীতার বিষয়ে রাজু আহমদ বলেন, ‘বিএনপির মনোনয়ন পাওয়ার বিষয়ে তিনি বেশ আশাবাদী।’
রাজুর দলীয় মনোনয়ন পাওয়ার সম্ভাবনার কথা জানিয়েছেন পৌর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক নজরুল ইসলামও। তিনি বলছেন, সোমবার কেন্দ্র থেকে বিষয়টি চূড়ান্ত হবে।
বিষয়টি নিয়ে জেলা ও উপজেলা বিএনপির নেতৃবৃন্দের মধ্যে দেনদরবার চলছে বলে জানাগেছে। একটি পক্ষ চাচ্ছেন নির্বাচনে যেতে; অন্যপক্ষ বলছেন ‘নো ইলেকশন’।
জেলা বিএনপি সহসভাপতি ও উপজেলা বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক মহিউস সুন্নাহ চৌধুরী নার্জিস স্থানীয় মনোনয়ন প্রত্যাহারের পর কার্যত নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ালো বিএনপি। স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে মহিউস সুন্নাহ চৌধুরী নার্জিস, পৌর বিএনপির সাবেক সভাপতি গোলাম কিবরিয়া চৌধুরী শাহিন নির্বাচনী মাঠে থাকছেন।
পৌর বিএনপির সাবেক সভাপতি গোলাম কিবরিয়া চৌধুরী শাহীন বলেন, দলীয় সিদ্ধান্ত যাই হোক সাধারণ মানুষের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে নির্বাচনে অংশ নিচ্ছি। বিএনপির ব্যাপারে অামি কোন কথা বলতে চাই না।
এদিকে বর্তমান মেয়রকে হারানোর শোকের বেদনা থাকলেও নির্বাচন ঘিরে পৌরবাসীর মধ্যে বিরাজ করছে উৎসাহ উদ্দীপনা। মনোনয়নপত্র সংগ্রহকারী ৫ জনের মধ্যে বেশিরভাগই পরিচিতমুখ। সকলেই ‘হেভিওয়েট প্রার্থী। নির্বাচন ঘিরে অালোচনামুখর পৌরএলাকার পাড়া-মহল্লা, বিপনি-বিতান।
গত বৃহস্পতিবার বিকালে প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনার বাসভবনে আওয়ামী লীগের স্থানীয় সরকার মনোনয়ন বোর্ডের সভায় উপনির্বাচনে মেয়র পদে দলের প্রার্থী হিসেবে পাপলুকে মনোনীত করা হয়। অার দলীয় মনোনয়ন না পেয়ে এখন স্বতন্ত্রপ্রার্থী হয়ে নির্বাচন অংশ নিচ্ছেন যুক্তরাজ্য যুবলীগের যুগ্ম সম্পাদক আমিনুল ইসলাম রাবেল।
প্রসঙ্গত, উপনির্বাচন আগামী ৩ অক্টোবর অনুষ্ঠিত হবে। ইসি এই তারিখ নির্ধারণ করেছে। মেয়র পদে নির্বাচনের জন্য সিনিয়র জেলা নির্বাচন কর্মকর্তাকে রিটার্নিং অফিসার এবং উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তাকে সহকারি রিটার্নিং অফিসারের দায়িত্ব দেয়া হয়েছে।
ইতিমধ্যে তফসিল ঘোষণা করেছেন সিনিয়র জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা খোরশেদ আলম। তফসিল মতে, মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষদিন ছিল রবিবার (৯ সেপ্টেম্বর), মনোনয়নপত্র বাছাই আজ (১০ সেপ্টেম্বর) এবং প্রত্যাহারের শেষ দিন অাগামী ১৭ সেপ্টেম্বর।
এরপর প্রতীক বরাদ্দ। প্রতীক বরাদ্দের পর থেকে শুরু হবে আনুষ্ঠানিক প্রচার-প্রচারণা। তবে এখনও প্রার্থীরা মাঠে কাজ করছেন। ভোটারদের মন জয়ের লক্ষ্যে চালিয়ে যাচ্ছেন অনানুষ্ঠানিক প্রচার-প্রচারণা।

Developed by: