সর্বশেষ সংবাদ
এ্যাকশনে পুননির্বাচিত আরিফ  » «   ঈদের আগে খালেদা জিয়ার মুক্তি দাবি করেছে বিএনপি  » «   সমকাল সম্পাদককে শেষ শ্রদ্ধা  » «   অনবদ্য তামিম ইকবাল  » «   ওরা এখনো নজরকাড়া  » «   শাবিপ্রবি’র হল বন্ধ  » «   সিলেটে ২১ আগষ্ট থেকে ৫ দিন বন্ধ বিদ্যুতের প্রিপেইড মিটার রিচার্জ  » «   ইকুয়েডরে সড়ক দুর্ঘটনায় ২৪ জন নিহত  » «   ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন হ্যাক করা অত্যন্ত সহজ!  » «   সারা’র রুপে মুগ্ধ সবাই  » «   আবারও সিলেটে অনুষ্ঠিত হবে বঙ্গবন্ধু কাপ  » «   সিলেটে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধাঞ্জলি  » «   প্রতিদ্বন্দ্বি যখন যমজ বোন  » «   বিএনপি নির্বাচন বানচালের চক্রান্ত করছে : কাদের  » «   পঁচাত্তরে যেমন ছিল বাংলাদেশ  » «  

রাগীব আলী ও তার ছেলের সাজা বহাল



096186370c9f2a0366b129bca6a0b54e-57aac7e26c2d4
স্টাফ রিপোর্টার
সিলেটের আলোচিত-সমালোচিত শিল্পপতি রাগীব আলীর ১৪ বছরের সাজা বহাল রেখেছেন সিলেটের বিশেষ দায়রা জজ আদালত। বৃহস্পতিবার সকালে এ আপিলের শুনানি শেষে এ আদেশ দেন আদালত। মন্ত্রণালয়ের স্মারক জালিয়াতি করে তারাপুর চা বাগান দখলের অভিযোগে দায়েরকৃত মামলায় রাগীব আলী ও তার ছেলে আবদুল হাইকে নিম্ন আদালতে ২০১৭ সালের ২ ফেব্রুয়ারি ১৪ বছরের সাজা দেয়া হয়েছিল। সেটির বিরুদ্ধে করা আপিল শুনানি শেষে বৃহস্পতিবার সকালে বিশেষ দায়রা জজ আদালতের বিচারক দিলীপ কুমার ভৌমিক নিম্ন আদালতের রায় বহাল রাখেন।
রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী ও জননিরাপত্তা আদালতের স্পেশাল পিপি অ্যাডভোকেট নওশাদ আহমদ চৌধুরী সিলেটভিউকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।
তিনি জানিয়েছেন- ‘আদালত রাগীব আলীর সাজার রায় বহাল রেখেছেন। ভূমি মন্ত্রণালয়ের স্মারক জালিয়াতি করে শহরতলির তারাপুর চা বাগান ৯৯ বছরের জন্য লিজ নেয়ার অভিযোগে বিগত ২০০৫ সালে সিলেটের কোতোয়ালী থানায় মামলা করেন তৎকালীন সহকারী কমিশনার ভূমি এসএম আব্দুল কাদের। তদন্ত এবং বিচার শেষে এই মামলায় ২০১৭ সালের ২ ফেব্রুয়ারি সিলেট জেলা আদালতের তৎকালীন মুখ্য মহানগর হাকিম সাইফুজ্জামান হিরো পাঁচটি ধারায় রাগীব আলী ও তার ছেলে আব্দুল হাইকে ১৪ বছরের কারাদন্ড দিয়েছিলেন।’
এই রায়ের বিরুদ্ধে আসামীরা আপিল করলে আজ নিম্ন আদালতের রায় বহাল রেখে রায় প্রদান করেন বিশেষ জজ আদালতের বিচারক দিলীপ কুমার ভৌমিক জানান অ্যাডভোকেট নওশাদ।
শুনানীকালে রাষ্ট্রপক্ষে একমাত্র আইনজীবী ছিলালেন অ্যাডভোকেট নওশাদ আহমদ চৌধুরী। অন্যদিকে আসামী পক্ষের আইনজীবী ছিলেন সাবেক আইনমন্ত্রী অ্যাডভোকেট আবদুল মতিন খসরু, অ্যাডভোকেট এটিএম মাসুদ টিপু, অ্যাডভোকেট মঈনুল ইসলাম।

Developed by: