সর্বশেষ সংবাদ
রাজ-শুভশ্রী এক বাঁধনে  » «   বাংলাদেশ নতুন যুগে প্রবেশ করেছে : প্রধানমন্ত্রী  » «   আগাম বন্যার আশঙ্কা  » «   ঈদে আসছে ‘আমার প্রেম আমার প্রিয়া’  » «   বজ্রপাতে একদিনে সারাদেশে ৩০ জনের মৃত্যু  » «   জাতীয় অধ্যাপক মুস্তাফা নূরউল ইসলামের ইন্তেকাল  » «   জাতিসংঘ মিশন : সিলেটের ২০০ স্বপ্নবাজ তরুণের নেতৃত্বে হাওরসন্তান সোহাগ  » «   বিয়ানীবাজারে বুদ্ধি প্রতিবন্ধি যুবতীকে ধর্ষণের অভিযোগে যুবক গ্রেফতার  » «   বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হচ্ছেন সোনম কাপুর আর আনন্দ আহুজা  » «   এসএসসি ফল পুনঃনিরীক্ষন শুরু : একাদশে ভর্তি ১৩ মে থেকে  » «   ষাঁড়ের গুতোয় কৃষকের মৃত্যু  » «   পা-ই তার সাফল্যের চাবিকাটি  » «   গাছ ভেঙে পড়ায় সিলেটের সাথে রেল যোগাযোগ বন্ধ  » «   এসএসসিতে সিলেটে পাস ৭০.৪২% : জিপিএ-৫ ৩১৯১ জন  » «   নিয়োগ চলছে কামা পরিবহন (প্রা. লি.)-এ।  » «  

শুক্রবারে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত



7MARCH  প্রান্তডেস্ক: : দি সিলেট চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রি’র উদ্যোগে কল-কারখানা ও প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন অধিদপ্তর, সিলেট এর উপ-মহাপরিদর্শক হিমন কুমার সাহা’র সাথে সিলেটের ব্যবসায়ী নেতৃবৃন্দের এক মতবিনিময় সভা বুধবার বিকাল ৫টায় চেম্বার কনফারেন্স হলে অনুষ্ঠিত হয়।
সিলেট চেম্বারের সভাপতি খন্দকার সিপার আহমদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় কল-কারখানা ও প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন অধিদপ্তর, সিলেট এর উপ-মহাপরিদর্শক হিমন কুমার সাহা বলেন, সরকারের শ্রম আইন অনুযায়ী সকল ব্যবসা প্রতিষ্ঠান সপ্তাহে অন্তত দেড়দিন বন্ধ রাখার বিধান রয়েছে। গত শুক্রবারে কুমারপাড়ায় অনেকগুলো ব্যবসা প্রতিষ্ঠান খোলা থাকায় ঐদিন অধিদপ্তরের পক্ষ থেকে অভিযান পরিচালনা করা হয়। তিনি বলেন, সপ্তাহে অন্তত একদিন ছুটি শ্রমিকের মানবিক অধিকার। এ অধিকার রক্ষায় ব্যবসায়ীদেরকে সচেতন থাকতে হবে। যেহেতু শুক্রবারে বাংলাদেশের সকল ধরণের প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকে তাই ব্যবসা প্রতিষ্ঠানও বন্ধ রাখা উচিত। কিন্তু কিছু কিছু নিত্যপ্রয়োজনীয় ও পঁচনশীল পণ্যের দোকান যেমন কাঁচা শাক-সবজি, মাংস, মাছ, দুগ্ধ জাতীয় পণ্যের দোকান, ফার্মেসী, ব্যান্ডেজ, অপারেশনের সরঞ্জাম ইত্যাদির দোকান এই আইনের বাইরে রয়েছে।
সভায় ব্যবসায়ীগণ শুক্রবারে একত্রে সকল স্থানে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ না রেখে পর্যায়ক্রমে এলাকাভিত্তিক আংশিক দোকান বন্ধ ও আংশিক খোলা রাখার আহবান জানালে এ ব্যাপারে উপ-মহাপরিদর্শক বলেন, এক্ষেত্রে সমস্যা ব্যবসায়ীদেরই বাড়বে এবং বিষয়টি নিয়ন্ত্রণ করা কষ্টসাধ্য হবে। তিনি পরবর্তীতে এব্যাপারে উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সাথে আলোচনাক্রমে ব্যবস্থা গ্রহণের আশ্বাস প্রদান করেন।
সভায় অধিদপ্তরের পক্ষ থেকে সরকারী নির্দেশের কপি ব্যবসায়ীদেরকে সরবরাহ করা হয়। সিলেট চেম্বারের সভাপতি খন্দকার সিপার আহমদ বলেন, সিলেটের ব্যবসায়ীরা আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। আমাদের সকলকেই সরকারের আইন মেনে ব্যবসা-বাণিজ্য পরিচালনা করতে হবে। শহরের কয়েকটি স্থান ও নির্দিষ্ট কিছু প্রতিষ্ঠান ব্যতীত প্রায় সকল জায়গাতেই শুক্রবারে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকে। তিনি শ্রমিকের অধিকার রক্ষায় ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের মালিকদের সহনশীল হওয়ার আহবান জানান।
সভায় ব্যবসায়ীগণ সরকারের আইন সকল জায়গায় সমানভাবে প্রয়োগের অনুরোধ জানান এবং সরকারের আইনের প্রতি শ্রদ্ধা রেখে শুক্রবারে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখার ব্যাপারে সকলেই একমত পোষণ করেন।
সভায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন সিলেট চেম্বারের সিনিয়র সহ সভাপতি মাসুদ আহমদ চৌধুরী, সহ সভাপতি মোঃ এমদাদ হোসেন, নয়াসড়ক বিজনেস এসোসিয়েশনের সভাপতি মাহি উদ্দিন আহমেদ সেলিম।
এসময় উপস্থিত ছিলেন সিলেট চেম্বারের পরিচালক আমিরুজ্জামান চৌধুরী, সিলেট ক্যাটারার্স এসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক সালাউদ্দিন বাবলু, নয়াসড়ক বিজনেস এসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক হোসেন আহমদ, সহ সাধারণ সম্পাদক তাহমিদুল হাসান জাবেদ, নয়াসড়ক, কুমারপাড়া, পূর্ব জিন্দাবাজারসহ অন্যান্য এলাকার ব্যবসায়ীবৃন্দ এবং কল-কারখানা ও প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন অধিদপ্তর, সিলেট এর কর্মকর্তাবৃন্দ।

Developed by: