সর্বশেষ সংবাদ
আশির দশকের মাঠ কাঁপানো ‘কালো চিতা’ আর নেই  » «   কলকাতায় ‘চালবাজ’ মুক্তি পেলেও বাংলাদেশে অনিশ্চয়তা  » «   বটগাছকে স্যালাইন পুশ!  » «   শিক্ষক নিয়োগের প্রশ্ন ফাঁসে জড়িত আটক ১৫ জন  » «   দক্ষিণ সুরমায় ‘সুরমা ন্যাচারাল পার্ক’র উদ্বোধন হতে পারে জুলাইয়ে  » «   নেপালের ত্রিভুবন বিমানবন্দরে আবারও বিমান দুর্ঘটনা  » «   ইলিয়াছ আলীর গাড়ি চালক আনসার আলীর মা-মেয়ে আজও অপেক্ষায়  » «   কোটা সংস্কার আন্দোলনকারীদের সংবাদ সম্মেলন : সাত দিনের মধ্যে মামলা প্রত্যাহার না করলে ক্লাস বর্জন  » «   ‘করের আওতায় আনা হবে সিএনজি অটোরিকশা মালিকদের’  » «   দীর্ঘ ২৫টি বছর পর…  » «   অবশেষে আরব আমিরাতে খুলেছে বাংলাদেশের শ্রমবাজার  » «   বালাগঞ্জে ‘দেশরত্ন শেখ হাসিনা সেতু’র ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন  » «   দক্ষিণ সুরমায় জোড়া খুনের মামলায় ৪৯ জন কারাগারে : ২ জনের জামিন  » «   প্রেমের টান বড় জোরদার : যুক্তরাষ্ট্র থেকে ফরিদপুর  » «   অর্ধ মানুষরূপী এটা কি?  » «  

বাংলাদেশের নাগরিকত্ব পেলেন বৃটিশ নাগরিক লুসি হল্ট



hasina-1প্রান্তডেস্ক:অবশেষে বাংলাদেশের নাগরিকত্ব পেলেন বৃটিশ নাগরিক লুসি হল্ট। সাতান্ন বছর আগে বাংলাদেশে আসা লুসি বাংলা শিখেছেন, মুক্তিযুদ্ধে রেখেছেন অসামান্য অবদান। নিজেকে নিবেদিত করেছেন এদেশবাসীর সেবায়। মাঝে মধ্যে স্বজনদের দেখতে জন্মভূমি লন্ডনে গেছেন, কিন্তু কদিন থেকেই আবার ফিরে এসেছেন বাংলায়। এতদিন অতৃপ্তি ছিল তার বাংলাদেশের নাগরিকত্ব না পাওয়া নিয়ে, অবশেষে প্রধানমন্ত্রীর শেখ হাসিনার হস্তক্ষেপে সেই স্বীকৃতিও পেলেন।
ভিনদেশি এই লুসি হল্ট সুন্দর বাংলা জানেন, মধুর কণ্ঠে গাইতে পারেন রবীন্দ্র সংগীত ও দেশাত্ববোধক গান।
১৯৬০ সালে স্বজনদের সাথে বাংলা দেশে আসেন লুসি হল্ট। কিন্তু স্বজনরা বৃটেনে চলে গেলেও এদেশের সৌন্দর্যে মুগ্ধ হয়ে এখানেই থেকে যান লুসি। মাঝে মধ্যে স্বজনদের সাথে দেখা করতে জন্মভুমি ইংল্যান্ডে গেলেও কিছুদিন থেকে আবার ফিরে আসেন। বাংলাদেশে এসে প্রথমে তিনি বরিশালের অক্সফোর্ড মিশনের হোস্টেলে উঠেন।
একাত্তরের মহান মুক্তিযুদ্ধের সময় যশোরের ফাতেমা হাসপাতালে চিকিৎসা সেবায় অংশ নিয়ে অনেক আহত মুক্তিযোদ্ধাকে সুস্থ করে তুলেন তিনি। জীবনের জৌলুস, আরাম-আয়েশ ও আধুনিকতাকে বিসর্জন দিয়ে লুসি হল্ট বর্তমানে বরিশাল মহানগরীর অক্সফোর্ড মিশনের ছোট্ট একটি ঘরে বসবাস করছেন। জীবনের বাকি সময়টাও এখানেই কাটিয়ে দিতে চান তিনি।
ভিনদেশি লুসি হল্ট বাংলাদেশে ১৫ বছরের মাল্টিপল ভিসা পেলেও এতদিন পাননি দ্বৈত নাগরিকত্ব।
সর্বশেষ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সাক্ষাৎ পান গত ৮ফেব্রুয়ারি বঙ্গবন্ধু উদ্যানের জনসভায়। আশ্বাসও পান দ্বৈত নাগরিকত্বের।
প্রধানমন্ত্রীর আশ্বাসের এক সপ্তাহের মধ্যে অবশেষে আজ মিললো তার দ্বৈত নাগরিকত্বের স্বীকৃতি।
১৯৩০ সালের ডিসেম্বরে জন্ম নেয়া লুসি হল্টের বয়স এখন ৮৭ বছর। বাংলাদেশকে ভালোবেসে মৃত্যুর পর এদেশের মাটিতেই সমাধি পেতে চান তিনি।

Developed by: