সর্বশেষ সংবাদ
নিজ নিজ দায়বদ্ধতা থেকে সমাজের উন্নয়নে সবাইকে এগিয়ে আসতে হবে -এসডিসি চেয়ারম্যান  » «   সালমান শাহের মৃত্যু রহস্য উদঘাটনে সময় পেল পিবিআই  » «   এসডিসি কার্য্যনির্বাহী কমিটির সভা অনুষ্ঠিত  » «   মৌলভীবাজারের ৫ জনের যুদ্ধাপরাধের রায় যে কোনো দিন  » «   এরা এখনো বিশ্বাস করে না পৃথিবী গোল!  » «   সাগরে লঘুচাপ, হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টিপাতের পূর্বাভাস  » «   লাউয়াছড়ায় অবমুক্ত করা হয়েছে বিরল প্রজাতির লেজের ‘মোল’  » «   লন্ড‌নে এসিড হামলায় দু‌টি চোখ হারা‌লেন বাংলা‌দেশী তরুন  » «   জাফলংয়ে মাটি চাপায় কিশোরী নিহত, আহত ৪  » «   ক্লিনিক আর ডায়গনাস্টিক সেন্টারে সড়কজুড়ে যানজট  » «   কমরেড আ ফ ম মাহবুবুল হক আর নেই  » «   গোলাপগঞ্জে তেলবাহী লেগুনায় আগুন  » «   পিলখানা হত্যাকাণ্ড : হাইকোর্টের রায় ২৬ নভেম্বর  » «   লোদীর বাসায় মেয়র আরিফ: বিরোধের অবসান!  » «   নগরীতেে কোনদিন কোথায় স্মার্ট কার্ড বিতরণ  » «  

শাহজালাল সার কারখানায় ফের উৎপাদন শুরু



31junপ্রান্ত ডেস্ক : পাঁচদিন বন্ধের পর আবারো উৎপাদনে সিলেটের ফেঞ্চুগঞ্জের শাহজালাল সার কারাখানা। রোববার রাত থেকে গ্যাস সংযোগ সচল হওয়ায় কারখানায় উৎপাদন শুরু হয়। পাঁচদিন উৎপাদন বন্ধ থাকায় কারখানা প্রায় ছয় কোটি টাকার ক্ষতি হয়।শাহজালাল সারকারখানার ব্যবস্থাপনা পরিচালক প্রকৌশলী মোঃ মনিরুল হক বলেন, ১১ ফেব্রয়ারী রোববার সন্ধ্যায় কারখানায় গ্যাস সংযোগ পুনরায় দেওয়া হয়েছে। কারখানায় উৎপাদন কাজ শুরু হয়েছে।
এর আগে গত ৬ ফেব্রয়ারি মঙ্গলবার সকাল ১১টায় সার কারখানায় গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেওয়ায় উৎপাদন কাজ বন্ধ হয়ে যায়।সরকারি সিদ্ধান্ত অনুযায়ী প্রতি বছর সেচ মৌসুমে গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেওয়া হয় এতে উৎপাদন বন্ধ থাকে। সরকারি নির্দেশনা আসলে আবারও গ্যাস সংযোগ দেয়া হয়।সেচ মৌসুমে সরকারের বিদ্যুতের চাহিদা বৃদ্ধি পায়। সেই চাহিদা পূরনের লক্ষেই এইরকম সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। এটি প্রতিবছরই এক দুবার করা হয়ে থাকে।
দেশের বৃহত্তম সিলেটের ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলায় ২০১২ সালের ২৪ জুন দেশের বৃহত্তম এই সার কারখানায় ভিত্তিপ্রস্থর স্থাপন করেছিলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ওই বছরের শুরুতে সার কারখানা নির্মাণের জন্য ১৫০ একর জমি অধিগ্রহণ করা হয়। চীন ও বাংলাদেশের যৌথ অর্থায়নে সার কারখানাটি নির্মাণে এর আগে ঢাকায় একটি চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়। এটি নির্মাণে ব্যয় হয়েছে ৫৪০৯ কোটি টাকা। তন্মধ্যে চীন সরকার ও চীনের এক্সিম ব্যাংক দেয় ৩৯৮৬ কোটি টাকা। বাকি টাকা বাংলাদেশ সরকারের নিজস্ব তহবিল থেকে দেয়া হয়।

Developed by: