সর্বশেষ সংবাদ
ইলিয়াছ আলীর গাড়ি চালক আনসার আলীর মা-মেয়ে আজও অপেক্ষায়  » «   কোটা সংস্কার আন্দোলনকারীদের সংবাদ সম্মেলন : সাত দিনের মধ্যে মামলা প্রত্যাহার না করলে ক্লাস বর্জন  » «   ‘করের আওতায় আনা হবে সিএনজি অটোরিকশা মালিকদের’  » «   দীর্ঘ ২৫টি বছর পর…  » «   অবশেষে আরব আমিরাতে খুলেছে বাংলাদেশের শ্রমবাজার  » «   বালাগঞ্জে ‘দেশরত্ন শেখ হাসিনা সেতু’র ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন  » «   দক্ষিণ সুরমায় জোড়া খুনের মামলায় ৪৯ জন কারাগারে : ২ জনের জামিন  » «   প্রেমের টান বড় জোরদার : যুক্তরাষ্ট্র থেকে ফরিদপুর  » «   অর্ধ মানুষরূপী এটা কি?  » «   ফের আলোচনায় ডিআইজি মিজান : সংবাদ পাঠিকাকে ৬৪ টুকরো করার হুমকি  » «   গোলাপগঞ্জে হামলার শিকার তরুণের মৃত্যু  » «   সাবেক মার্কিন ফার্স্ট লেডি বারবারা বুশ নেই  » «   ৪০ গুণ বেশি দামে বিক্রি হচ্ছে ফুটবল বিশ্বকাপের টিকেট!  » «   প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা লন্ডনে পৌঁছেছেন  » «   চাঁদ দেখা কমিটির বৈঠক আজ  » «  

মাটি কাটা নিয়ে সংর্ঘষে আহত এক ব্যক্তির মৃত্যু



31junছাতক প্রতিনিধি: ছাতকে পতিত জমিতে মাটি কাটার ঘটনাকে কেন্দ্র করে প্রতিপক্ষের হামলার ঘটনায় আবদুল কাদির (৪৫) নামের এক ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছে।
বৃহস্পতিবার (৮ ফেব্রুয়ারি) রাতে সিলেটের এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে তার মৃত্যু হয়। নিহত আবদুল কাদির উপজেলার সিংচাপইড় ইউনিয়নের মহদী গ্রামের মৃত মনোফর আলীর পুত্র।
স্থানীয়রা জানান, গত সোমবার নিহত আবদুল কাদিরের বাড়ির পাশে পতিত জমিতে মাটি কাটা নিয়ে তার চাচাতো ভাই মহদী গ্রামের খুরশিদ আলীর পুত্র ছাইদুল ইসলামের সাথে একই গ্রামের গপেশ নাথ ও তার পুত্র গোপাল নাথের বাক-বিতণ্ডা ও হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। এর জের ধরে পরদিন মঙ্গলবার দুপুরে ওই জায়গায় আবারও গপেশ নাথ, গোপাল নাথসহ চার-পাঁচজন মাটি কাটতে আসলে ছাইদুল ইসলাম ও আবদুল কাদির ওই জায়গায় মাটি কাটতে নিষেধ করলে দু’পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এতে আবদুল কাদির (৪৫), ছাইদুল ইসলাম (৪২) ও গপেশ নাথ (৬৫) সহ উভয়পক্ষের ৫ জন আহত হয়। আহতদের মধ্যে আবদুল কাদির ও গপেশ নাথকে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি ও বাকি আহতদের স্থানীয়ভাবে চিকিৎসা দেওয়া হয়।
ঘটনার ৩ দিন পর গতকাল বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আবদুল কাদিরের মৃত্যু ঘটে। এ ঘটনায় ছাতক থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

Developed by: