সর্বশেষ সংবাদ
আশির দশকের মাঠ কাঁপানো ‘কালো চিতা’ আর নেই  » «   কলকাতায় ‘চালবাজ’ মুক্তি পেলেও বাংলাদেশে অনিশ্চয়তা  » «   বটগাছকে স্যালাইন পুশ!  » «   শিক্ষক নিয়োগের প্রশ্ন ফাঁসে জড়িত আটক ১৫ জন  » «   দক্ষিণ সুরমায় ‘সুরমা ন্যাচারাল পার্ক’র উদ্বোধন হতে পারে জুলাইয়ে  » «   নেপালের ত্রিভুবন বিমানবন্দরে আবারও বিমান দুর্ঘটনা  » «   ইলিয়াছ আলীর গাড়ি চালক আনসার আলীর মা-মেয়ে আজও অপেক্ষায়  » «   কোটা সংস্কার আন্দোলনকারীদের সংবাদ সম্মেলন : সাত দিনের মধ্যে মামলা প্রত্যাহার না করলে ক্লাস বর্জন  » «   ‘করের আওতায় আনা হবে সিএনজি অটোরিকশা মালিকদের’  » «   দীর্ঘ ২৫টি বছর পর…  » «   অবশেষে আরব আমিরাতে খুলেছে বাংলাদেশের শ্রমবাজার  » «   বালাগঞ্জে ‘দেশরত্ন শেখ হাসিনা সেতু’র ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন  » «   দক্ষিণ সুরমায় জোড়া খুনের মামলায় ৪৯ জন কারাগারে : ২ জনের জামিন  » «   প্রেমের টান বড় জোরদার : যুক্তরাষ্ট্র থেকে ফরিদপুর  » «   অর্ধ মানুষরূপী এটা কি?  » «  

বাংলাদেশের সংগ্রহ ৫১৩



31junপ্রান্তডেস্ক:চট্টগ্রাম টেস্টে বাংলাদেশ প্রথম ইনিংসে ৫১৩ রান করেছে।৪ উইকেটে ৩৭৪ রান নিয়ে খেলা শুরু করা বাংলাদেশ দ্বিতীয় দিনের মধ্যাহ্ন বিরতির পর সবগুলো উইকেট হারিয়ে এ রান সংগ্রহ করে।দলের পক্ষে মমিনুল হক ১৭৬ রান, মাহমুদুল্লাহ অপরাজিত ৮৩ এবং তামিম ইকবাল ৫২ রান করেন।মধ্যাহ্ন বিরতি পর্যন্ত বাংলাদেশের স্কোর ছিল ৭ উইকেটে ৪৬৭ রান। দ্বিতীয় সেশনের প্রথম বলেই টেস্ট ক্যারিয়ারের ১৫তম ফিফটি তুলে নেন মাহমুদউল্লাহ। অন্যপ্রান্তে ২৪ রান নিয়ে তাকে দারুণ সঙ্গ দেন সানজামুল ইসলাম। কিন্তু দ্বিতীয় সেশনে দ্বিতীয় ওভারেই সান্দাকানের বলে স্টাম্পিংয়ের শিকার হন সানজামুল (২৪)।দ্বিতীয় দিন থেকেই স্পিনবান্ধব হয়ে ওঠা উইকেটে তার আগে দারুণ লড়াই করেছেন মাহমুদউল্লাহ–সানজামুল। সকালের সেশনে ৪৩ রানের মধ্যে ৩ উইকেট হারিয়ে পথ হারানো বাংলাদেশকে পথে ফেরান তারা।
এর আগে ৯৩তম ওভারে হেরাথের বলে শর্ট লেগে ক্যাচ দেন মুমিনুল। ১৬ বাউন্ডারি ও ১ ছক্কায় ১৭৬ রানের ইনিংসটি সাজান তিনি। মুমিনুলের পর মোসাদ্দেক হোসেন নেমেও বেশিক্ষণ টিকতে পারেননি। ৯৭তম ওভারে সেই হেরাথের বলেই মিডঅনে ক্যাচ দেন মোসাদ্দেক (৮)। মেহেদী হাসান মিরাজ (২০) ব্যাকওয়ার্ড পয়েন্টে বল পাঠিয়ে ৩ রান নিতে গিয়ে রানআউট হন।৪৭৮ রানে দলকে রেখে তাইজুল আউট হয়ে গেলে শেষ জুটিতে বাংলাদেশ যোগ করে আরও ৩৫ রান। মাহমুদুল্লাহ আর মোস্তাফিজের সেই জুটি ভাঙে মোস্তাফিজের ৮ রানে আউট হওয়ার মাধ্যমে; অপর প্রান্তে ৮৩ রানে অপরাজিত ছিলেন অধিনায়ক মাহমুদুল্লাহ। মাহমুদুল্লাহ বল খেলেন ১৩৪টি, যেখানে ছিল ৭টি চার ও ২টি ছয়ের মার।
শ্রীলঙ্কার পক্ষে হেরাথ ও লাকমাল প্রত্যেকে ৩টি করে, এবং সান্দাকান ২ ও পেরেরা ১টি উইকেট নেন।

Developed by: